• ঢাকা
  • |
  • বুধবার ১৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ রাত ১০:৫৯:৫৯ (30-Nov-2022)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও

জাতীয়

ইন্ডিয়ান জিএসকে এর লোগো ব্যবহার করে “ইনো” উৎপাদন হচ্ছে ত্রিশালে

১৯শে অক্টোবর ২০২২ সন্ধ্যা ০৭:২৮:৫৭

এই ফ্যাক্টরীতে তৈরী হচ্ছে অবৈধ ‘ইনো’। ফাইল ছবি

শফিকুল ইসলাম, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ): দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদেশী কোম্পানীর সীল ব্যবহার করে খাদ্যজাত দ্রব্য উৎপাদন করছে কিছু প্রতিষ্ঠান। কোন প্রকার অনুমতি ছাড়াই বিদেশী কোম্পানীর লেবেল লাগিয়ে সেগুলো বাজারজাত করা হচ্ছে। 

এমন একটি কোম্পানীর খোঁজ পাওয়া গেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার আমীরাবাড়ী ইউনিয়নের নারায়নপুর গ্রামের মো: হুমায়ুনের বাড়িতে। সে ওই এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে। বাড়িতে মেশিনারিজ বসিয়ে অদক্ষ লোক দিয়ে ইন্ডিয়ান জিএসকে কোম্পানীর লোগো ব্যবহার করে ‘ইনো’ উৎপাদন করা হচ্ছে। কেমিস্ট ছাড়াই কর্মচারী দিয়ে উৎপাদন করা হচ্ছে  এসব খাদ্যজাত পণ্য। পেটে গ্যাসের সমস্যা হলে মানুষ সাধারণত ‘ইনো’ ব্যবহার করে থাকে।

কারখানার কর্মচারী মোসলেম উদ্দিন বলেন, এসব উৎপাদন অবশ্যই অবৈধ। তবে অল্প কিছুদিন হল ভারতীয় জিএসকে এর লোগো ব্যবহার করে ‘ইনো’ উৎপাদন করা হচ্ছে।

‘ইনো’ মূলত বিদেশী প্রোডাক্ট। এটি জিএসকে নামে ভারতে বাজারজাত হচ্ছে। আমাদের দেশ থেকে জিএসকে চলে গেছে ২০১৮ সালে। সেই কোম্পানীর লেবেল লাগিয়ে ‘ইনো’ উৎপাদন করা অবৈধ। উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে প্রশাসন কর্তৃক আইনের আওতায় আনা দরকার। তা নাহলে ভেজাল খাদ্যে ভুক্তভোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকবে।

‘ইনো’ বিভিন্ন দোকানপাটে অহরহ বিক্রি হচ্ছে। এগুলো নিয়ন্ত্রণ জরুরী এখনই।

ফার্মাসিস্ট মো: কবির বলেন, আমাদের কাছে নানা ধরণের প্রলোভন নিয়ে সেলসম্যানরা আসে। কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি ইনো বিক্রি বন্ধ ঘোষণা করেছে। আর সেখানে ভারতীয় জিএসকে লগো দিয়ে নকল এ খাদ্য পণ্য উৎপাদন অবশ্যই অবৈধ এবং বাজারজাত করায় তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে।

ডা. ইমরান হোসেন বলেন, ভেজাল ধরনের যে কোনো ওষুধ মানবদেহে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে। এগুলো মানবদেহের জন্য খুব ক্ষতিকর। প্রত্যেককেই এসব ভেজাল খাদ্যদ্রব্য এড়িয়ে চলা উচিত।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন পরিষদ, জেলা প্রশাসন, বিএসটিআই অভিযান চালিয়ে এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। এতে মানুষ অবৈধ, মানহীন উৎপাদন বাজারজাত হওয়া খাদ্যদ্রব্য থেকে নিজেদের মুক্ত রাখতে পারবে।

ত্রিশালের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আক্তারুজ্জামান বলেছেন, ভোক্তা অধিকার নিশ্চিত করতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। আমরা আপনাদের মাধ্যমে এ বিষয়টি জানতে পেরেছি। ভেজাল খাদ্য বা ওষুধ জাতীয় পণ্য উৎপাদনের বিষয়টি আমরা গুরুত্বসহকারে দেখব।

সর্বশেষ সংবাদ



ওসি দিপুর কন্যা রাইসা জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন 
৩০শে নভেম্বর ২০২২ সকাল ১১:৩২:৩১


সাংবাদিক কন্যা মুবাশ্বিরা পেলেন জিপিএ-৫
২৯শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:৪৫:৫৮

আমাদের অনেক যুদ্ধ করতে হয়: লিপি ওসমান
২৯শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:৩৭:৪৯

খুনিদের সাথে কিসের আলোচনা : শামীম ওসমান
২৮শে নভেম্বর ২০২২ রাত ০৮:২৪:৫৩

নৌ-যান শ্রমিকদের ১০ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘাট পালন 
২৮শে নভেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৬:২০:৩৪

শ্রীপুরে অনুমোদনহীন বিদেশী ঔষুধ উদ্ধার
২৮শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৩:০০:৫০

নারায়ণগঞ্জে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন
২৭শে নভেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৭:৫২:২০

ASIAN TV