• ঢাকা
  • |
  • বৃহঃস্পতিবার ২৪শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ সন্ধ্যা ০৬:৫২:১৬ (08-Dec-2022)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও

নারী কথন

ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী মনিকা–মালতীদের লড়াই

২৯শে আগস্ট ২০২২ সন্ধ্যা ০৬:১৩:২৫

পান সাজানোর কাজ করছেন একজন খাসিয়া নারীছবি: সংগৃহীত

মনিকার গল্প

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার খাসিয়া গ্রাম মেঘাটিলা পুঞ্জি। গাছ কাটতে সেখানে এসে হাজির বন বিভাগের লোকজন। তাঁদের দাবি, বড় গাছগুলোর মালিক বন বিভাগ। গাছ কাটার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে গেলেন পুঞ্জির বাসিন্দারা। সম্মিলিত বাধার মুখে পিছু হটল বন বিভাগ। তারা আর গাছ কাটতে পারল না।

২০০৮ সালের সেই আন্দোলনের কথা স্মরণ করে পুঞ্জির মন্ত্রী (গ্রামপ্রধান) মনিকা খংলা বলছিলেন, ‘শতাধিক বছর ধরে এ পুঞ্জিতে খাসিদের বাস। আমাদের কাছে কাগজপত্রও আছে। তবু বন বিভাগ আমাদের জায়গায় এসে গাছ কাটতে চেয়েছিল। আমরা রুখে দাঁড়িয়েছিলাম।’

প্রকৃতি রক্ষার সে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মনিকা। সেই তাঁরই বিরুদ্ধে ২০১১ সালে গাছ কাটার অভিযোগে মামলা করে বন বিভাগ। ১০ বছরেও সেই মামলার কোনো সুরাহা হয়নি। মনিকা মনে করেন তাঁকে শায়েস্তা করতেই মূলত এ উদ্যোগ।

মনিকা খংলা
মনিকা খংলাছবি: সংগৃহীত

খাসিয়াদের জীবিকার প্রধান অবলম্বন পান। পুঞ্জির পাশে পাশেই থাকে পানের বাগান। বড় বড় গাছে অবলম্বন করে বেড়ে ওঠে পানের লতা। পানের চারা রোপণ ও পান তোলার কাজটি করেন পুরুষেরা। আর পান বাছাই ও বিপণনের পুরো কাজটিই করেন নারীরা। নিজেদের জীবিকার প্রয়োজনেই তাই গাছপালা সংরক্ষণ করেন খাসিয়ারা। প্রাকৃতিক বনে যখন গাছ উধাও হওয়া নিত্যদিনের ঘটনা, খাসিয়াপুঞ্জিতে শত শত বছর ধরে প্রাচীন গাছের সংরক্ষণে যত্নবান খাসিয়ারা। প্রকৃতি রক্ষার এ দায় নারীদেরই বেশি বলে জানান কুলাউড়ার মুরইছড়া পুঞ্জির মন্ত্রী ফ্লোরা বাবলি তালাং। সামাজিক বনায়নের নামে কৃত্রিম বন সৃজনের বিরুদ্ধে কাজ করছেন তিনি। ফ্লোরা বলছিলেন, ‘আন্দোলনে যখন আমরা নারীরা থাকি, তখন সমাজের অনেকেই এগিয়ে আসে। প্রকৃতি রক্ষার এ আন্দোলন আমাদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্যই।’

মালতীর গল্প

২০০৪ সালে ইকোপার্কবিরোধী আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে মধুপুর বন। এতে শামিল হন মালতী নকরেক। এ কারণে বন বিভাগের রোষের মুখে পড়েন এই সত্তরোর্ধ্ব গারো নারী। তিনি স্থানীয় মিশনারি স্কুলে তখন শিক্ষকতা করতেন। তাঁর বিরুদ্ধে বনের গাছ চুরির মামলা হয় সে সময়। তিন তিনটি মামলা। মামলা চালাতে গিয়ে বিক্রি করতে হয়েছে জমিজিরাত। এর মধ্যে দুটি মামলা থেকে নিষ্কৃতি পেয়েছেন। একটি এখনো রয়ে গেছে।

মালতী নকরেক বলছিলেন, ‘আমি একজন শিক্ষক এবং এ বনের অধিবাসী। সেই আমার বিরুদ্ধে বন ধ্বংসের অভিযোগ! আজ ১৮ বছর ধরে এ মামলায় ভুগছি। এ নির্যাতন থেকে কবে রক্ষা পাব, জানি না।’

গারো জাতিগোষ্ঠী মূলত বনবাসী। টাঙ্গাইলের মধুপুর ও গারো পাহাড়ের পাদদেশের সীমান্তসংলগ্ন বিভিন্ন এলাকায় গারোদের বাস। বন রক্ষার জন্য গারোদের নানা সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে যেতে হচ্ছে দীর্ঘকাল। এসব আন্দোলনে তাঁরা মামলা ও হামলায় নিগৃহীত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

মালতী নকরেক
মালতী নকরেকছবি: সংগৃহীত

সরকারি হিসাবে বাংলাদেশে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সংখ্যা ৫০। এর মধ্যে খাসিয়া ও গারো জাতিগোষ্ঠী মাতৃসূত্রীয়। তাদের সমাজ নারীপ্রধান। সম্পত্তির মালিকানা নারীর, সন্তানও মায়ের পদবি নেয়। সময়ের আবর্তে এই দুই সমাজে নারীর প্রথাগত নিয়ন্ত্রণ কিছুটা আলগা হয়ে এসেছে সত্য, এখনো ভিত্তিগুলো অনেকটাই টিকে আছে। এই দুই জাতিগোষ্ঠীর সম্পদ ও সংস্কৃতি রক্ষায় নারীরা রেখে যাচ্ছেন অনবদ্য ভূমিকা। সম্পদে ও উত্তরাধিকারের ক্ষেত্রে নারীর প্রাধান্য এই গারো ও খাসিয়া জাতিসত্তার নারীদের অনন্যতা দিয়েছে। বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলছিলেন, ‘দেশের সব আদিবাসী জাতিগোষ্ঠী নারীরা পরিবার ও নারীরা তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। সম্পদ সংরক্ষণে, কৃষিকাজে, সিদ্ধান্ত গ্রহণে নারীদের ভূমিকা যথেষ্ট। তবে মাতৃসূত্রীয় দুই গোষ্ঠীতে নারীদের দায়িত্ব অনেক বেশি। আমাদের সমাজে ‘‘হাউসওয়াইফ’’ ধারণাটি নেই।’

খাসিয়া ও গারো জাতিগোষ্ঠী মাতৃসূত্রীয়

সরকারি হিসাবে বাংলাদেশে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সংখ্যা ৫০। এর মধ্যে খাসিয়া ও গারো জাতিগোষ্ঠী মাতৃসূত্রীয়। তাদের সমাজ নারীপ্রধান। সম্পত্তির মালিকানা নারীর, সন্তানও মায়ের পদবি নেয়। সময়ের আবর্তে এই দুই সমাজে নারীর প্রথাগত নিয়ন্ত্রণ কিছুটা আলগা হয়ে এসেছে সত্য, এখনো ভিত্তিগুলো অনেকটাই টিকে আছে। এই দুই জাতিগোষ্ঠীর সম্পদ ও সংস্কৃতি রক্ষায় নারীরা রেখে যাচ্ছেন অনবদ্য ভূমিকা। সম্পদে ও উত্তরাধিকারের ক্ষেত্রে নারীর প্রাধান্য এই গারো ও খাসিয়া জাতিসত্তার নারীদের অনন্যতা দিয়েছে। বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলছিলেন, ‘দেশের সব আদিবাসী জাতিগোষ্ঠী নারীরা পরিবার ও নারীরা তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। সম্পদ সংরক্ষণে, কৃষিকাজে, সিদ্ধান্ত গ্রহণে নারীদের ভূমিকা যথেষ্ট। তবে মাতৃসূত্রীয় দুই গোষ্ঠীতে নারীদের দায়িত্ব অনেক বেশি। আমাদের সমাজে ‘‘হাউসওয়াইফ’’ ধারণাটি নেই।’

সর্বশেষ সংবাদ

নারায়ণগঞ্জ শহরে জলকামান মোতায়েন
৮ই ডিসেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:৫৫:৪৭


পুরুষের ফুসফুস, নারীর স্তন ক্যানসার বেশি
৮ই ডিসেম্বর ২০২২ দুপুর ১২:৫৩:৩১


তালতলী রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন
৭ই ডিসেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৬:১৫:৩১

ভোলার চরফ্যাসন যুবলীগের ৫০ তম বর্ষপূর্তি উদযাপন
৬ই ডিসেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৬:২২:৪৯





ASIAN TV