• ঢাকা
  • |
  • বুধবার ১৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বিকাল ০৪:১৬:৪২ (30-Nov-2022)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও

জাতীয়

উদ্বোধনের অপেক্ষায় ৩৭১২ কোটি টাকার পয়ঃশোধনাগার, পাইপলাইনের খবর নেই

২১শে আগস্ট ২০২২ দুপুর ০১:৫৭:৩৮

উদ্বোধনের অপেক্ষায় দাশেরকান্দি পয়ঃশোধনাগার।ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা ওয়াসার দাশেরকান্দি পয়ঃশোধনাগার নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৩ হাজার ৭১২ কোটি টাকা। এখন এ শোধনাগার উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে। কিন্তু নির্ধারিত এলাকা থেকে পয়োবর্জ্য শোধনাগারে পৌঁছানোর পাইপলাইনই (নেটওয়ার্ক) তৈরি হয়নি। ফলে এত টাকা ব্যয়ে নির্মিত প্রকল্পের সুফল শিগগির সংশ্লিষ্ট নগরবাসী পাবে না।

ঢাকা ওয়াসা সূত্রে জানা যায়, ২৩ আগস্ট দাশেরকান্দি পয়ঃশোধনাগার উদ্বোধনের তারিখ ধার্য ছিল। এ উপলক্ষে ঢাকা ওয়াসা কর্তৃপক্ষ ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়। মোট ছয়টি কমিটি করা হয়। কমিটিতে ১৪০ সদস্য রাখা হয়। উদ্বোধন উপলক্ষে ঢাকা ওয়াসা ভবন ও প্রকল্প এলাকায় পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ২৩ আগস্টের উদ্বোধন অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে।

ঢাকা ওয়াসার উপপ্রধান জনতথ্য কর্মকর্তা এ এম মোস্তফা তারেক আজ রোববার প্রথম আলোকে বলেন, এখন আগামী সেপ্টেম্বরে পয়ঃশোধনাগারটি উদ্বোধন করা হতে পারে।

ঢাকা ওয়াসার একাধিক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কিছু ঘটনায় ঢাকা ওয়াসা ভাবমূর্তি সংকটে পড়েছে। উচ্চ আদালত থেকে ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) বেতন-ভাতা নিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে। কর্মীদের পারফরম্যান্স বোনাস স্থগিত করা হয়েছে। এ অবস্থায় শোধনাগার উদ্বোধন করে সরকারপ্রধানের সামনে ঢাকা ওয়াসার এমডি নিজের সফলতা তুলে ধরতে চান। কিন্তু এত টাকা ব্যয়ে নির্মিত শোধনাগারের উদ্দেশ্য যে আপাতত পূরণ হবে না, এ তথ্য গোপন করা হচ্ছে।

দাশেরকান্দি পয়ঃশোধনাগার প্রকল্পের উদ্দেশ্য—রাজধানীর বেশ কিছু এলাকার পয়োবর্জ্য পরিশোধন করে বালু নদীতে নিষ্কাশন করা। এলাকাগুলোর মধ্যে গুলশান, বনানী, ডিওএইচএস, আফতাবনগর, বাড্ডা, মগবাজার, নিকেতন, কলাবাগান, ধানমন্ডি (একাংশ) ও হাতিরঝিল অন্যতম। দৈনিক ৫০ কোটি লিটার পয়োবর্জ্য পরিশোধনের মাধ্যমে ৫০ লাখ নগরবাসীকে সেবা দেওয়াই এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

ঢাকা ওয়াসার একাধিক কর্মকর্তা বলছেন, শোধনাগার নির্মাণের সঙ্গে সঙ্গে নেটওয়ার্ক তৈরি করা প্রয়োজন ছিল। পাইপলাইন নির্মাণ একটি সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়বহুল প্রক্রিয়া। পয়োবর্জ্য নেটওয়ার্ক করতে কয়েক হাজার কোটি টাকার নতুন প্রকল্প নিতে হবে। এতে সময় লাগবে কয়েক বছর। ফলে যে উদ্দেশ্যে শোধনাগার করা হয়েছে, তা নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন ছাড়া পূরণ হবে না। এত টাকা ব্যয়ে নির্মিত শোধনাগারের সুফল জনগণকে পেতে নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

ঢাকা ওয়াসা কর্তৃপক্ষ বলছে, হাতিরঝিলে আসা বর্জ্য শোধন করা হবে দাশেরকান্দি শোধনাগারে। প্রকল্পের নির্ধারিত এলাকার জন্য পাইপলাইন নেটওয়ার্ক নির্মাণে আলাদা প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। নতুন এ প্রকল্পে চীনের এক্সিম ব্যাংকের অর্থায়নের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। তবে কবে নাগাদ এ নেটওয়ার্ক নির্মাণের কাজ শুরু হবে, তা নিশ্চিত নয়।

সর্বশেষ সংবাদ

ওসি দিপুর কন্যা রাইসা জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন 
৩০শে নভেম্বর ২০২২ সকাল ১১:৩২:৩১


সাংবাদিক কন্যা মুবাশ্বিরা পেলেন জিপিএ-৫
২৯শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:৪৫:৫৮

আমাদের অনেক যুদ্ধ করতে হয়: লিপি ওসমান
২৯শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:৩৭:৪৯

খুনিদের সাথে কিসের আলোচনা : শামীম ওসমান
২৮শে নভেম্বর ২০২২ রাত ০৮:২৪:৫৩

নৌ-যান শ্রমিকদের ১০ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘাট পালন 
২৮শে নভেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৬:২০:৩৪

শ্রীপুরে অনুমোদনহীন বিদেশী ঔষুধ উদ্ধার
২৮শে নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৩:০০:৫০

নারায়ণগঞ্জে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন
২৭শে নভেম্বর ২০২২ সন্ধ্যা ০৭:৫২:২০



ASIAN TV